1. Shokti24TV2020@gmail.com : Shokti 24 TV admin :
সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:৫২ অপরাহ্ন

রক্ত জমাট বাঁধার কারণ অনুসন্ধানে নামলো ইইউ

কদর শিকদার, ষ্টাফ রিপোর্টার
  • Update Time : শনিবার, ১০ এপ্রিল, ২০২১
  • ৩০ Time View
জনসন অ্যান্ড জনসনের ভ্যাকসিন নেয়ার পর ভ্যাকসিন গ্রহণকারীর শরীরে রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়ার

জনসন অ্যান্ড জনসনের ভ্যাকসিন নেয়ার পর ভ্যাকসিন গ্রহণকারীর শরীরে রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়ার যে সমস্যা সামনে এসেছে তার কারণ অনুসন্ধানে নেমেছে ইউরোপীয়ান ইউনিয়নের ড্রাগ নিয়ামক সংস্থা । চার জনের শরীরে এই ধরণের সমস্যা দেখা গেছে, যাদের ভ্যাকসিন নেয়ার পর রক্তে প্লেটলেট অস্বাভাবিকহারে কমে গেছে এবং রক্ত জমাট বাঁধার কারণে একজনের মৃত্যুর খবর সামনে এসেছে।
এর আগে অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিনে একই সমস্যার কথা শোনা গিয়েছিল। যাকে বিরলতম সমস্যা বলছেন বিশেষজ্ঞরা। ভ্যাকসিন নিয়েই রক্ত জমাট বাঁধার সমস্যা তৈরি হয়েছে কিনা জানতে জনসন অ্যান্ড জনসনের বিশেষজ্ঞরা ড্রাগ নিয়ামক সংস্থার সঙ্গে মিলিতভাবে তথ্য সংগ্রহ করছে।
যদিও এখনও সেরকম কোনও যোগসূত্র পাওয়া যায়নি। একটি ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের সময়ে প্রথম বিষয়টি সামনে আসে। যদিও সংস্থার দাবি, এতে ভ্যাকসিনের কোনও দোষ ছিল না।
আমেরিকায় প্রায় পাঁচ মিলিয়ন মানুষের দেহে জনসন অ্যান্ড জনসনের ভ্যাকসিন প্রদান করা হয়েছে, যার মধ্যে তিন জনের দেহে রক্ত জমাট বাঁধার মতো সমস্যা দেখা গেছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের পক্ষ থেকেই জনসন অ্যান্ড জনসনের ভ্যাকসিনকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে মানবদেহে প্রয়োগের জন্য।
তবে রক্ত জমাট বাঁধার মতো বিষয়টি সামনে আসার পর আপাতত চলতি মাসে এই ভ্যাকসিনেশন পদ্ধতি স্থগিত রাখা হয়েছে। যেহেতু অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিনের ওপর বেশ কয়েকটি দেশে বিধিনিষেধ আছে তাই আপাতত ওয়ান শট ভ্যাকসিনের ওপর নির্ভর করছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। রাশিয়ার স্পুটনিক ভি ভ্যাকসিন নিয়েও এখনও পরীক্ষা নিরিক্ষার প্রয়োজন আছে বলে মনে করছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।
জনসন অ্যান্ড জনসন এবং অ্যাস্ট্রাশটগুলির মত, স্পুটনিক একটি অ্যাডেনোভাইরাস ব্যবহার করে -করোনা ভাইরাস প্রতিরোধী অ্যান্ডিবডি তৈরি করতে।
ব্লুমবার্গ ইন্টেলিজেন্সের সমীক্ষা বলছে, এই অ্যাডেনোভাইরাস টেকনোলজির জন্যই হয়তো অ্যাস্ট্রাজেনেকা, জনসন অ্যান্ড জনসন, স্পুটনিক-ভি-এর মতো ভ্যাকসিনগুলি প্রয়োগের পর বেশকিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া পরিলক্ষিত হয়। যদিও ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন তড়িঘড়ি এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চায়নি। ইএমএ-র সমীক্ষক পিটার আরলেট ৭ এপ্রিল জানিয়েছেন, যে সংখ্যক মানুষের দেহে জনসন অ্যান্ড জনসনের ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়েছে তাদের মধ্যে রক্ত জমাট বাঁধার মতো সমস্যায় ভোগার সংখ্যাটা নেহাতই নগন্য। তিনি জানিয়েছেন, ৪.৫ মিলিয়ন মানুষের দেহে জনসন অ্যান্ড জনসন প্রয়োগ করা হয়েছে , তাদের মধ্যে তিন জনের দেহে রক্ত জমাট বাঁধার সমস্যা ধরা পড়েছে। কেন এই সমস্যা তা পর্যবেক্ষণ করা প্রয়োজন বলে মনে করেন আরলেট।
তবে চূড়ান্ত অনুমোদনের আগে স্পুটনিক -ভি ভ্যাকসিনের ওপর নিবিড় পর্যবেক্ষণ প্রয়োজন বলে মনে করে ইএমএ । নিরাপত্তা এবং সুরক্ষার কথা ভেবেই এই সিদ্ধান্ত নেয়া উচিত বলে মনে করে সংস্থাটি। কারণ কথায় বলে সাবধানের মার নেই।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Coder Boss
Design & Develop BY Coder Boss