1. Shokti24TV2020@gmail.com : Shokti 24 TV admin :
সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:১০ অপরাহ্ন

ঝিমিয়ে পড়া যুবদলকে গতীশিল করতে যেকোনো সময় নতুন কমিটি

বিশেষ প্রতিনিধি।
  • Update Time : মঙ্গলবার, ২৪ আগস্ট, ২০২১
  • ১৪৫৭ Time View

একসময় রাজপথের আন্দোলনে জাতীয়তাবাদী যুবদলই ছিলো বিএনপি’র ভ্যানগার্ড। সময়ের পরিক্রমায় যুবদলের আজকের নেতৃত্ব অনেকটা নির্জীব। তিন বছর মেয়াদী বর্তমান কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে আরও ২০ মাস আগে। কিন্তু এখনও পূর্ণাঙ্গ কমিটি আলোর মুখ দেখেনি। তবে দলের কেউই এই বিষয়ে প্রকাশ্যে বক্তব্য দিতে রাজি নন।

সর্বশেষ ২০১৭ সালের ৩ জানুয়ারি সাইফুল আলম নীরবকে সভাপতি ও সুলতান সালাউদ্দিন টুকুকে সাধারণ সম্পাদ করে যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সুপার ফাইভ কমিটিতে সিনিয়র সহ-সভাপতি করা হয় মোরতাজুল করিম বাদরুকে, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক করা হয় সাবেক ছাত্রনেতা নুরুল ইসলাম নয়ন এবং সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয় মামুন হাসানকে।

২০১৯ সালের ৯ অক্টোবর যুবদলের ৫ নেতার সংগে স্কাইপে বৈঠক করেন বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। সেই বৈঠকে তিনি ২০ অক্টোবরের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি করতে নির্দেশ দেন। কিন্তু নির্ধারিত সময় পার হলেও পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করতে পারেনি যুবদল।

জানা গেছে, গত শনিবার (২১ আগস্ট) সুপার ফাইভকে নিয়ে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ভার্চ্যুয়াল বৈঠকে বসেন। সেই বৈঠকে হঠাৎ করেই ঢাকা মাহানগর উত্তর-দক্ষিণ যুবদলের কমিটি বিলুপ্ত করে দুই সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। ফলে কেন্দ্রীয় কমিটি পূর্ণাঙ্গ করার যে প্রক্রিয়া চলছিলো, তাতে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। নেতারা বলছেন, যুবদলের রাজনীতি নিয়ে নতুন মেরুকরণ হচ্ছে।

নতুন মেরুকরণে সিদ্ধান্ত হচ্ছে, কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কেউ নতুন করে আহবায়ক কমিটির দায়িত্ব পাবে না।দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান নীতিগতভাবে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে বিভিন্ন মাধ্যমে থেকে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ঘনিষ্ঠ একজন জানান, যে কোনো সময় কমিটি ভেঙে দিতে পারেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান।

যুবদলের নেতা-কর্মীদের সংঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ইতিমধ্যে দলে দু’টি পক্ষ দাঁড়িয়ে গেছে। কেউ চাচ্ছেন কেন্দ্রীয় কমিটি পূর্ণাঙ্গ হোক। আবার কেউ বলছেন, মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি ঘোষণা হলেই ভালো হবে।

 

নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র জানিয়েছে নতুন কমিটির বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ইতিবাচক মনোভাব পোষণ করেছেন। নতুন কমিটিতে সভাপতি হিসেবে সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু থাকতে চাইলে ও তাকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান চাইছেন না। ইতিমধ্যে তাকে সে বিষয়ে জানিয়ে দেওয়া হয়ছে।নতুন নেতৃত্ব বাঁচাই করার পক্রিয়াতে তাকে সহযোগিতা করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপি’র এক কেন্দ্রীয় নেতা বলেন, যে কোনও সময়ই নতুন কমিটি হতে পারে । আহবায়ক আলোচনায় রয়েছেন যুবদলের সিনিয়র সহ সভাপতি মোরতাজুল করিম বাদরু, কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন হাসান। ও যুবদলের সিনিয়র সাধারণ সম্পাদক নরুল ইসলাম নয়ন।

আরেকটি সূত্র থেকে জানা যাচ্ছে যে, সদস্য সচিব হিসাবে এস এম জাহাঙ্গীর হোসেন বিষয়ে তারেক রহমান ও দলের মহাসচিবের সবুজ সংকেত রয়েছে। তবে সুলতান সালাউদ্দীন টুকু সহ দলের একটি পক্ষ সদস্য সচিব হিসাবে ছাত্রদলের সাবেক দুই সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব বা আকরামুল হাসান মিন্টুকে চাচ্ছে।

কিন্তু সদস্য সচিব হিসাবে আলোচনায় থাকা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান মিন্টু ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিবের নাম শুনা গেলেও দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তাদেরকে যুবদলের না রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এ বিষয়ে একাধিক নেতাকে ফোন দিলেও কেউ কথা বলতে রাজি হননি।

১৯৭৮ সালের ২৭ অক্টোবর বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান যুবদল প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। আবুল কাশেমকে আহ্বায়ক করে যুবদলের কমিটি গঠন করা হয়। এরপর আবুল কাশেমকে সভাপতি এবং সাইফুর রহমানকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি গঠন করা হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Coder Boss
Design & Develop BY Coder Boss